অনান্য

যে কোন কাজেই সফল হওয়ার উপায়

moneyBag24 Ads.bag

আপনার জন্য সফল হওয়ার উপায় জানা খুবই জরুরী। কারণ, জীবণের পরিবর্তন-ই একমাত্র ধ্রুবক। যা প্রতিটা মুহূর্তে আপনাকে ধারাবাহিক ভাবে নতুন কিছুর চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেয়। তাই ভবিষ্যত জীবণের ঘাত-প্রতিঘাত প্রতিরোধ করে সফল হওয়ার জন্য। প্রতিনিয়ত আপনাকে নতুন কিছু শিখতে হবেই।

এই প্রবন্ধটিতে আমি এমন কয়েকটি টপিকস নিয়ে লিখেছি। যা আপনার জন্য আগামীর পথ চলতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। এবং লেখাটির সম্পূর্ণটা পড়ে। আপনি জীবণে সফল হওয়ার সঠিক উপায় জানতে পারবেন।

সাফল্য, একেকজনের কাছে একেক রকম। কারো কাছে সফলতা বলতে “টাকা পয়সা” উপার্জন করা ও ধনী হওয়াকে বুঝায়। কেউ হয়তো সুনাম ও খ্যাতি অর্জন করাকেই। তার জীবণের সাফল্য মনে করে। যেমন: একজন খেলোয়াড়। কারো কাছে আবার ভালো, সুস্থ ও সুখী থাকাটাই সাফল্য।

একজন খেলোয়াড় খেলায় জয়ী হওয়া। চ্যাম্পিয়নশীপ ও মিডল জিতাকে। তার জীবণের সাকসেস মনে করে।

তবে সাফল্য মানে যেরকমটাই ভাবেন না কেন। আপনার কাছে সফলতা মানে যেরকমটাই হোক না কেন। এই দশটি অভ্যাস আপনার ভিতরে না থাকলে। আপনি সফল হতে পারবেন না।

১) লক্ষ্য নির্ধারণ করুন: গভীর ভাবে সিদ্ধান্ত নিয়ে লক্ষ নির্ধারণ করুন। এবং পরবর্তী সময়ে তা অনুসরণ করুন। তবে কখনোও ছোট খাট কিছু চিন্তা করবেন না। সব সময় সেরাটাই হতে চাইবেন।

(image of “Good, Better, Best”)

২) দায়িত্বশীল হোন।
৩) নিয়মানুবর্তী হন।
৪) আত্ম উন্নয়নে মনোযোগী হন

৫) পড়ুন, জানুন ও শিখুন: অর্থাৎ নিজের জীবনের উন্নয়নের জন্য। প্রতিনিয়ত নতুন কিছু শিখুন।

৬) সময়মত কাজ করুন।
৭) রিস্ক নিন: নিজেকে এগিয়ে নিয়ে যেতে। কখনো কখনো রিস্ক বা ঝুঁকি নিতে হয়।

৮) ব্যর্থতাকে স্বীকার করে নিন: প্রতিটা মানুষের জীবণে ব্যর্থতা আসে। এটাই স্বাভাবিক। তবে তা স্বীকার করে নিন। এবং ব্যর্থতা থেকে আগামীর জন্য শিক্ষা গ্রহণ করুন।

৯) সফল হওয়ার উপায় ও সুযোগ খুজুন, এবং খুজে বের করুন।

একটা বিষয় এভাবেও ভাবতে পারেন: NO মানে একেবারে না নয়। বরং NO = Next Opportunity. অর্থাৎ একবার ব্যর্থ হলে। আবার নতুন কোন সুযোগ খুজুন। এবং নতুনভাবে চেষ্টা করুন।

১০) আপনি যদি একাধিক বিষয়ে পারদর্শী হয়ে থাকেন। তাহলে যে কাজটি করতে আপনি ভালোবাসেন। অর্থাৎ যেই কাজটি করতে আপনার ভালো লাগে। সেই কাজটিই করুন।

প্রত্যেক ব্যক্তির জীবণে বাধা আসে। এবং খারাপ পরিস্থিতির শিকার হয়। তখন মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়লে। সফল হতে পারবেন না।

সফলতা মানে কি?

সবাই সোনার চামচ মুখে নিয়ে জন্মায় না। কেউ জন্মগত ভাবে ধনী হতেই পারে। তাই বলে যে, সে জীবণে সফল হবে। এমনটা ভাবা বোকামীর শামিল। কারণ, সফলতা মানে হলো:

  • শিশুকাল ও শৈশবকালে– সবার ভালোবাসা অর্জনের জন্য। শিক্ষিত পিতা-মাতা পাওয়া। এবং জীবণে সঠিক পথে চলতে সঠিক দিক নির্দেশক পাওয়া।
  • শিক্ষা জীবনে– একজন মেধাবী ও আদর্শ শিক্ষার্থী হতে পারা।
  • কর্ম জীবণে– উচ্চ ক্যারিয়ার গড়তে পারা।
    ** চাকরি জীবণে– নিজেকে ভালো পদে আবিস্কার করা।
    ** ব্যবসায়ীক জীবণে– প্রয়োজনীয় অর্থ ও সুনাম অর্জন করা।

** শেষ জীবণে– পৃথিবীকে একটি সুন্দর কীর্তি উপহার দেওয়া।
এ সম্পর্কে কবি বলেছেন: এমন জীবণ করিও গঠণ। মরিলে হাসিবে তুমি, কাঁদিবে ভূবণ।

সফলতার কয়েকটি সূত্র:

১)শুরু করুন: যে ‘আইডিয়া’ আপনি মাথায় নিয়ে বসে আছেন, সেটা কাজে লাগিয়ে হয়তো কয়েক বছর পর অন্য কেউ সফল হবে। সুতরাং এখন থেকেই উদ্যোগ নেওয়া শুরু করুন।

পড়ুন: উদ্যোক্তা হওয়ার সহজ উপায়।
এই পোষ্টটিতে আপনি উদ্যোক্তা হবার সেরা টিপস জানতে পারবেন

২) এগিয়ে যান: আপনার নির্ধারিত লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে যান। এবং সেই লক্ষ্য অনুযায়ী সকল কার্যক্রম পরিচালনা করুন।

৩) নিন্দুকদের এড়িয়ে চলুন। পাছে লোকে কিছু বলে। এদিকে খেয়াল করবেন না।

৪) পরাজয় হবেন না: প্রত্যেকটা পরাজয়ের সাথে ব্যক্তি তার আত্ম-মূল্য হারিয়ে ফেলে। মনে রাখবেন, পরাজয়ের ভয়। পরাজয়ের চেয়েও খারাপ। কারণ, একটা পরাজয় আরো পরাজয়ের জন্ম দেয়।

৫) কঠোর পরিশ্রম করুন: অনেক মুরব্বিদেরকে বলতে শুনেছি: কষ্ট করলে, কেষ্ট মিলে। আর এটা তো স্বীকার্য যে, No pain, No gain.
কোথায় আছেন বা কোন পরিস্থিতিতে আছেন। সেটা ব্যাপার না। শুধু বলবো: পরিশ্রম করুন। কাজ করুন। সফলতা আসবেই।

৬) কিছু দেওয়ার চেষ্টা করুন: সব কিছুই নিবেন না। বরং কিছু দিয়ে যান।

কর্ম জীবণে সফল হওয়ার উপায়

১) আপনিই আপনার বস হোন:

উইলিয়াম হেনরি বিল গেটস(link) বলেছেন। আপনি নিজেই যদি নিজের স্বপ্নপূরণের কাজে না নামেন। তাহলে অন্য কেউ তাঁর স্বপ্ন পূরণে আপনাকে নিয়োগ করবে। তার চেয়ে বরং এই শ্রম নিজের স্বপ্নপূরণের পেছনে খরচ করুন। নিজেই নিজের বস হোন।

২) আত্ম উন্নয়নে মনোযোগী হন:

আপনি যখন কিছু করতে চাইবেন। বা কোন সিদ্ধান্ত নিতে চাইবেন। আপনার আশে-পাশের সবাই হয়তো বলবে: এটা হবে না, হতে পারে না। বা হলেও, তোমার দ্বারা এটা অসম্ভব।
তখন, তাদের কথায় কান না দিয়ে। নিজের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী উত্তম ভাবে, উত্তম কাজে মনোযোগী হন। এবং চেষ্টা করুন। তাহলে নিশ্চিত সফল হবেন।

উদ্যোক্তা ও ব্যবসায়ী জীবণে সফল হতে হলে —

১) এমন ইনকাম সোর্স তৈরি করুন। যেখান থেকে টাকা আসবেই।
২) নিজের ইনকামের মিনিমাম ২০% – ৩০% সঞ্চয় করুন।
৩) আপনার প্রজেক্ট বা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নের জন্য। নিয়মিত প্রয়োজনীয় বিষয়ে অভিজ্ঞতা অর্জন করবেন।
৪) অনুকরণ করা বন্ধ করুন: অর্থাৎ কারো প্রোডাক্ট/থিউরি নকল বা কপি করবেন না।
৫) নতুন কিছু উপহার দেওয়ার চেষ্টা করুন।
৬) এক লাফে গাছে উঠতে যাবেন না।

৭) কিছু না পাওয়ার চেয়ে, সামান্য কিছু পাওয়া ভালো। জীবণে এমন অসংখ্য অবস্থা ও সুযোগ তৈরি হবে। মিস করবেন না। দেখবেন, এই সামান্য পাওয়াটাই একদিন বিশাল পাওয়া হয়ে যাবে।

জীবণে সফল হওয়ার উপায়

জীবণকে অনেকভাবেই মাপা যায়। বয়স, সময় কিংবা লক্ষ্য দিয়ে বুঝানো যায়। কিন্তু জীবণের পথ চলার জন্য। এবং জীবণকে সামল্যময়ী করার জন্য।

** প্রথমত: আপনি ভবিষ্যতে কি হতে চান। সেটা নির্ধারণ কর। কোথায় পৌছাতে হবে। সেটা নিয়ে ভাবার দরকার নেই। বরং আপনি যেটা বেশি ভালো পারেন। এবং যেটা করতে আপনার স্বাচ্ছন্দবোধ হয়। আপনি সেটাই করুন।

আপনি বিশ্বাস করুন আর নাই করুন। বাস্তবতা সব সময় সত্য বলে প্রমাণিত হয়।

একজন প্রোগ্রামার(link) হয়েও মুদি দোকানদার হওয়া সম্ভব। আবার মুদি দোকানি করেও প্রোগ্রামার হওয়া সম্ভব। আসল ব্যাপারটা হচ্ছে: আপনাকে কাজ চালিয়ে যেতে হবে। আপনার কাজের সময় ও পরিস্থিতি সাপেক্ষেই, বুঝতে পারবেন। আপনার লক্ষ্য অর্জনের জন্য। ঠিক পথে ঠিক ভাবে কাজ করছেন কিনা। এবং যা কিছু করছেন। তা আপনার লক্ষ্য অর্জনের জন্য উচিত কিনা।

ভয়, সমস্যা, ব্যর্থতা, পরিস্থিতি

সফলরা সবসময় এই শব্দগুলোর মোকাবিলা করতে জানে। মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়ে না।

** প্রচেষ্টা বজায় রাখবেন: জীবন এতোটা সহজ নয়। যে সবকিছু আপনার ভাবনার মতো করে হবে। এই সত্যটা মেনে নিন: আপনি যতই কঠোর পরিশ্রম করেন না কেন।
এমন একটা সময় আসে। যখন সবকিছু আপনার মনমতো হয় না। সবকিছু আপনার নিয়ন্ত্রণে থাকবে না। আপনি পড়ে যাবেন। কিন্তু আপনাকে আবার দাঁড়াতে হবে। এবং প্রচেষ্টা বজায় রাখতে হবে।

** টিকে থাকুন:

যখন আপনি ভেঙ্গে পড়বেন। তখন সারা পৃথিবী আপনাকে তিরস্কার করবে। তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য করবে। তখন ভয় পাবেন না। আত্মবিশ্বাস হারাবেন না। বরং টিকে থাকতে শিখুন। মনে রাখবেন: টিকে থাকার একমাত্র উপায়: নিজের প্রকৃত সত্বাকে আকড়ে ধরা।

** নিজেকে চিনতে শিখুন: পরিস্থিতির বদৌলতে সারা পৃথিবী আপনাকে নাও চিনতে পারে। তখন আপনাকেই আপনার নিজেকে চিনতে হবে।

তাই নিজেকে চিনতে শিখুন। নিজের উপর কখনোও বিশ্বাস হারাবেন না। আর জীবণ নিয়ে কখনোও হতাশ হবেন না।

** সামর্থ্যের উপর আস্থা রাখুন: সমালোচনা ও নিন্দার উর্ধে্ব উঠে নিজের উপর বিশ্বাস রাখুন। নিজের সামর্থ্যের উপর বিশ্বাস রাখুন। প্রচলিত নিয়মকে চ্যালেঞ্জ করতে ভয় করবেন না। এর ফলস্বরুপ, আপনার সাথে কেউ নাও থাকতে পারে। তখন একলা চলতে দ্বিধা করবেন না।

পরিশেষে, সফল হওয়া কঠিন কাজ নয়। তবে অসাধারণ সফল ক্যারিয়ার(link) গড়ে তোলা প্রচন্ড কঠিন। আপনি সফল হয়ে উঠবেন কিনা, তা কেউ বলে দিতে পারে না। তবে আপনার মাঝে এমন কিছু বৈশিষ্ট্য বিদ্যমান থাকা উচিত।

যা আপনাকে অসাধারণ সফল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে সহায়ক হবে। আর এই সকল বিষয়গুলোই এই লেখাটিতে পূর্তি হয়েছে। যার সম্পূর্ণটা পড়ার পরই কেবল। আপনি সফলতার মূল রহস্য জানতে পারবেন।

আপনার সুস্থ কামনা করছি। এবং আশা করছি: পৃথিবীকে একটি সুন্দর কীর্তি(link) উপহার দেওয়ার। যাতে পৃথিবীতে আপনি কীর্তিমান হয়ে অমর হতে পারেন। ধন্যবাদ।।

Show More
moneyBag24 Ads.bag

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close

Adblock detected

Ad blocker বন্ধ করুন।
%d bloggers like this: